বি.দ্রঃদৈনিক নতুন ভাবনাপত্রিকায় প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার সম্পূর্ন লেখকের/প্রতিনিধির।আমরা লেখক প্রতিনিধির চিন্তা ও মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।প্রকাশিত লেখার সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল সবসময় নাও থাকতে পারে।তাই যে কোনো লেখার জন্য অত্র পত্রিকার কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

তাজা খবর

উজিরপুর থানায় ঢুকে পুলিশ ও আসামীর ওপর হামলা। ৫ হামলাকারী  আটক তিন পুলিশ কর্মকর্তাসহ আহত-৪

রাহাদ সুমনঃ-

বরিশালের উজিরপুর মডেল থানায় ঢুকে ইভটিজারকে মারধরের চেষ্টায় বাধা দিলে  হামলায় ৩ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ৫ হামলাকারীকে আটক করেছে পুলিশ।  এব্যাপারে

উজিরপুর মডেল থানায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে  মামলার প্রস্তুতি চলছে।

জানা গেছে, ১১ জানুয়ারী সোমবার দুপুরে ইচলাদী বাসস্টান্ডে আজিজ ফকিরের ছেলে নোমান ফকির অনিক (২৪)  এক ছাত্রীকে ইভটিজিং করেন।  এ অভিযোগে ইভিটিজিংয়ের শিকার ওই ছাত্রীর অভিভাবকরা ইভটিজার অনিকের পিতার ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানে  হামলা চালায়। এসময় স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দিলে নোমান ফকির অনিককে আটক করে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ।ওইদিন দুপুর আড়াইটায় ইভটিজিং এর শিকার শিক্ষার্থীর ভাই মুন্ডপাশা গ্রামের রাজ্জাক হাওলাদারের ছেলে সজিব হাওলাদার(২৪), মাইনুল ইসলাম রাজীব(২৭), সালাম শেখের ছেলে হাসান শেখ(২৬), মোতালেব খানের ছেলে সাইফুল ইসলাম(২৫), শহিদ হাওলাদারের ছেলে সজল হাওলাদার(২৯)সহ ৬/৭ জন থানায় ঢুকে ইভটিজার নোমান ফকির অনিকের ওপর হামলা চালায়। এসময় কর্তব্যরত এসআই সুদেব ও এসআই মাহাবুব এবং এএসআই হাসান তাদেরকে বাধা দিলে ক্ষিপ্ত হয়ে তাদের ওপর হামলা চালানো হয়। এ সময় ৫ জন হামলাকারীকে আটক করা হয়।

এ প্রসঙ্গে উজিরপুর মডেল থানার ওসি জিয়াউল আহসান বলেন থানায় এসে পুলিশ ও আসামীর ওপর হামলা করা  অমার্জনীয় অপরাধ। হামলাকারীদের আটক করা হয়েছে এবং তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। একই সঙ্গে ইভিটিজার অনিকের বিরুদ্ধেও মামলা নেওয়া হচ্ছে।

Alert! This website content is protected!