বি.দ্রঃদৈনিক নতুন ভাবনাপত্রিকায় প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার সম্পূর্ন লেখকের/প্রতিনিধির।আমরা লেখক প্রতিনিধির চিন্তা ও মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।প্রকাশিত লেখার সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল সবসময় নাও থাকতে পারে।তাই যে কোনো লেখার জন্য অত্র পত্রিকার কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

তাজা খবর

উজিরপুর পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী গিয়াস উদ্দিন পুনরায় মেয়র নির্বাচিত

রাহাদ সুমনঃ- উৎসবমুখর ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে  অনুষ্ঠিত বরিশালের উজিরপুর পৌরসভা নির্বাচনে  আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. গিয়াস উদ্দিন বেপারী বেসরকারী ভাবে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি নৌকা প্রতিকে ৫ হাজার ৭০৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধি বিএনপি প্রার্থী মো. শহিদুল ইসলাম খান ধানের শীষ প্রতিকে ৭৬৫ ভোট পেয়েছেন। এছাড়া ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী কাজী শহিদুল ইসলাম হাত পাখা প্রতিকে ৬১০ ভোট পেয়ে তৃতীয় হয়েছেন।  এর আগে  সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত  ইভিএমে ভোট গ্রহণ করা হয়। নির্বাচনে প্রাপ্ত ভোটের গড় হার ৫৯ ভাগ। পৌষের হাড় কাঁপানো কনকনে শীত উপেক্ষা করে  সকাল ৮টার আগেই  প্রতিটি কেন্দ্রে  ভোটারদের দীর্ঘ লাইন পড়ে যায়। বিশেষ করে নারী ভোটারদের ব্যাপক উপস্থিতি  ছিলো চোখে পড়ার মতো। কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। সকাল ৮টায় পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ডের ডব্লিউবি সরকারী মডেল স্কুল কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার মেয়র প্রার্থী গিয়াস উদ্দিন বেপারী তার ভোট দেন। এসময় বানারীপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব গোলাম ফারুক ও উজিরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান আঃ মজিদ সিকদার বাচ্চুসহ দলীয় নেতা-কর্মীরা তার সঙ্গে ছিলেন। এছাড়া বিএনপির ধানের শীষের প্রার্থী শহিদুল ইসলাম খান ৯ নং  ওয়ার্ডের রসুলাবাদ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়  ও ইসলামী আন্দোলনের হাত পাখার  প্রার্থী কাজী শহিদুল ইসলাম ২ নং  ওয়ার্ডে ইচলাদী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে  ভোট দেন।  প্রসঙ্গত পৌরসভার ৯ টি ভোট কেন্দ্রে ভোটার ছিলো ১১হাজার ৯২৪ জন ।  এর  মধ্যে ৫ হাজার ৯৩৬ জন নারী ভোটার ও ৫ হাজার ৯৮৮জন পুরুষ ভোটার । নির্বাচনে প্রাপ্ত ভোটের গড় হার ৫৯ ভাগ। এদিকে ৯ টি ওয়ার্ডের মধ্যে ২ টি ওয়ার্ডে ২জন পুরুষ কাউন্সিলর প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত হন। ফলে বিজয়ী হওয়ার মানসে ৭টি ওয়ার্ডে ২২ জন কাউন্সিলর ও নারী কাউন্সিলর  প্রার্থী ভোট যুদ্ধে অবর্তীণ হন । উল্লেখ্য এ বছর উজিরপুর পৌরসভায় প্রথমবারের মত ইভিএম পদ্ধতিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ফলে ভোটারদের মধ্যে এ নিয়ে কৌতুহল ও অনভিজ্ঞতার ভীতি ছিলো। কিছু ভোটারের আঙ্গুলের ছাপে প্রথমে সমস্যা হলেও শেষ পর্যন্ত সহজে ও  নির্বিঘেœ ভোট দিতে পেরে ভোটাররা সন্তোষ প্রকাশ করেন

Alert! This website content is protected!