বি.দ্রঃদৈনিক নতুন ভাবনাপত্রিকায় প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার সম্পূর্ন লেখকের/প্রতিনিধির।আমরা লেখক প্রতিনিধির চিন্তা ও মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।প্রকাশিত লেখার সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল সবসময় নাও থাকতে পারে।তাই যে কোনো লেখার জন্য অত্র পত্রিকার কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

তাজা খবর

ওসি হেলাল উদ্দিনের দূরদর্শিতায় বানারীপাড়া এখন শান্তির জনপদ

রাহাদ সুমন,বানারীপাড়া(বরিশাল)ঃ- এক সময়ের চরমপন্থী ও সন্ত্রাসীদের জনপদ বরিশালের বানারীপাড়া এখন শান্তির জনপদে রূপান্তরিত হয়েছে। ২০০৮ সালে ২৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতাসীন হওয়ার পর থেকে গত এক যুগে সেই সন্ত্রাসের জনপদ ধীরে ধীরে শান্তির জনপদে পরিণত হয়। সন্ত্রাসের জনপদকে শান্তি ও স্বস্তির জনপদে রূপান্তর করতে স্থানীয় সংসদ সদস্য,উপজেলা চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতৃবন্দের পাশাপাশি মূখ্য ভূমিকা পালণ করেন থানার অফিসার ইনচার্জগণ (ওসি)। বিশেষ করে বানারীপাড়া থানার সাবেক ওসি জিয়াউল আহসান ও সাজ্জাদ হোসেন এবং বর্তমান ওসি মো. হেলাল উদ্দিনের দেশপ্রেম,সততা,কর্তব্যনিষ্ঠা,প্রজ্ঞা ও দূরদর্শিতায় বানারীপাড়ার আইন শৃঙ্খলার অভূতপূর্ব উন্নতি সাধিত হয়ে সর্বত্র এখন শান্তির সুবাতাস বইছে। চৌকস পুলিশ ইন্সপেক্টর মো. হেলাল উদ্দিন  গত ২৬ আগষ্ট বানারীপাড়া থানায় অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হিসেবে যোগদানের পর মাত্র চার মাসে এখানকার আইন শৃঙ্খলা সমুন্নত রাখতে তিনি দূরদর্শি নেতৃত্ব দেন। তিনি যোগদান করেই সন্ত্রাস ও  মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষণা করেন। গত চার মাসে বেশ কয়েকজন শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ীসহ অর্ধশত মাদকসেবী ও ব্যবসায়ীকে বিভিন্ন মাদকদ্রব্যসহ আটক করে মামলা দিয়ে জেলহাজতে পাঠান। এছাড়া ভ্রাম্যমান আদালতে বেশ কয়েকজনকে জেল ও জরিমানাও করা হয়েছে। বানারীপাড়া থেকে মাদক,সন্ত্রাস,বাল্য বিয়ে ও ইভটিজিংসহ যাবতীয় অবক্ষয় নির্মূলে তিনি উপজেলার বিভিন্ন স্থানে কমিউনিটি ও বিট পুলিশিংয়ের ব্যানারে জনপ্রতিনিধি,শিক্ষক,সাংবাদিক ও রাজনীতিকসহ নানা শ্রেণী-পেশার মানুষের সঙ্গে মতবিনিময় সভা করেছেন। বরিশাল রেঞ্জের ডিআইজি শফিকুল ইসলাম বিপিএম ( বার) পিপিএম ও জেলা পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলাম বিপিএম (বার)সহ উর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তারা এতে অংশ নেন। এদিকে সচেতনতামূলক মতবিনিময় সভার পাশাপাশি তিনি জঙ্গীবাদ,সন্ত্রাস ও মাদকসহ যাবতীয় অনৈতিক কাজ থেকে কিশোর ও যুবসমাজকে দূরে রাখতে তাদের মাঠমুখী করতে খেলাধুলার সামগ্রী বিতরণসহ নানাভাবে সহায়তা করছেন। চৌকস এ পুলিশ কর্মকর্তা পৌর শহর সহ বিভিন্ন এলাকায় নিজেই টহলে বের হয়ে যেমন অপরাধ দমনে ভূমিকা রাখছেন তেমনী অসহায় দুস্থদের ঘরে ঘরে নিজ হাতে খাদ্য ও পণ্য সামগ্রী এবং শীতার্তদের জন্য কম্বল পৌঁছে দিয়ে মানবতার দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। ধর্মভীরু,সৎ ,ন্যায় পরায়ন ও রুচিশীল ওসি মো. হেলাল উদ্দিন শুধু বানারীপাড়ার আইন শৃঙ্খলারই অভূতপূর্ব উন্নতি সাধন করেননি  থানার ভবন,মসজিদ ও সীমানা প্রাচীর সংস্কার,লাইটিং ও ফুলের বাগান করে থানা কম্পাউন্ডকেও জরাজীর্ণরূপ থেকে দৃষ্টি নন্দন রূপ দিয়েছেন। সম্পতি বানারীপাড়া পৌর শহরের ৯ নং ওয়ার্ডে অনুষ্ঠিত বিট পুলিশিংয়ের একটি মতবিনিময় সভায়  বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় জেলা পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলাম বিপিএম(বার) তার বক্তব্যে বলেন আইন শৃঙ্খলাসহ সব সুচকে বানারীপাড়া থানা এক নম্বরে ফলে এটি মডেল থানা হওয়া উচিৎ। ওই সভার প্রধান অতিথি বরিশাল রেঞ্জের ডিআইজি শফিকুল ইসলামও বিপিএম ( বার) পিপিএম বানারীপাড়া থানার সার্বিক আইন শৃঙ্খলা নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন। এদিকে আইন শৃঙ্খলার উন্নয়ন ও মানবিক বিভিন্ন কাজ করে ওসি মো. হেলাল উদ্দিন স্বল্প সময়ের মধ্যেই সর্ব মহলে  আস্থা,সুনাম ও প্রশংসা কুড়িয়েছেন।
Alert! This website content is protected!