বি.দ্রঃদৈনিক নতুন ভাবনাপত্রিকায় প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার সম্পূর্ন লেখকের/প্রতিনিধির।আমরা লেখক প্রতিনিধির চিন্তা ও মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।প্রকাশিত লেখার সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল সবসময় নাও থাকতে পারে।তাই যে কোনো লেখার জন্য অত্র পত্রিকার কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

তাজা খবর

গোপালপুর পৌরসভা নির্বাচন প্রচারণায় ব্যস্ত প্রার্থীরা

মো. আশিকুর রহমান টুটুল, নাটোর প্রতিনিধিঃ-
দ্বিতীয় ধাপে আগামী ১৬ জানুয়ারী নাটোরের গোপালপুর পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে বাছাই অন্তে প্রার্থীদের মাঝে প্রতিক বরাদ্দা দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। প্রতিক বরাদ্দের পর থেকে পৌর এলাকায় জমে উঠেছে নির্বাচনী মাঠে। এ নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রচার-প্রচারনায় ব্যস্ত সময় কাটাছে মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা। সব মিলিয়ে সরগরম তৃণমূলের রাজনীতি।
উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানাগেছে, এবার পৌরনির্বাচনে মেয়র পদে ৪ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ১২ জন ও সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৬ জন প্রার্থী প্রতিদ্বদ্বিতা করছেন।
মেয়র পদে ক্ষমতাসীনদল আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতিকে পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি রোকসানা মোর্ত্তজা লিলি, ক্ষমতার বাহিরে থাকা বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতিকে গোপালপুর পৌর বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল্লা আল মামুন কচি, স্বতন্ত্র প্রার্থী রেল ইঞ্জিন প্রতিকে সাবেক মেয়র মুনজুরুল ইসলাম বিমল ও নারিকেল গাছ প্রতিকে আব্দুল হান্নান প্রতিদ্বদ্বিতা করছেন।
সরেজমিনে সকাল থেকে পৌর এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, পৌর এলাকায় এখন নির্বাচনী হওয়া বাইছে। প্রার্থীরা লিফলেট বিতরণ, পোস্টার সাঁটিয়ে, ব্যানার টাঙিয়ে ও মাইকিংএর মাধ্যমে নির্বাচনী মাঠে নিজেদের প্রার্থী হওয়ার খবর জানাচ্ছে পৌরবাসীদের। শুধু মেয়র নয় ও কাউন্সিলর প্রার্থীরাও নির্বাচনী মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন। শক্তভাবে মাঠে নেমে ভোট প্রার্থনায় ব্যস্ত সময় অতিক্রম করছে প্রার্থীরা। শুধু তাই নয় প্রার্থী ও তার কর্মীসমর্থকরা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকেও চলাছে জোর প্রচার-প্রচারনা। নির্বাচনকে সামনে রেখে পাড়া-মহল্লায় জনসাধারণের মধ্যেও উৎসাহ দেখা যাচ্ছে। চায়ের দোকানেও চলছে জোর আলোচনা-সমালোচনা। এসময় স্থানীয় ভোটারদের সঙ্গে কথা হয় তারা বলেন,‘সুষ্ট ও নিরোপেক্ষ ভোট অনুষ্ঠিত হলে তারা তাদের পছন্দের প্রার্থীদের ভোট দিবেন।
এব্যাপারে আওয়ামীলীগের মেয়র প্রার্থী রোকসানা মোর্ত্তজা লিলি বলেন,‘আওয়ামীলীগ এখন ঐক্যবদ্ধ আগামী ১৬ তারিখের নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়লাভ করবেন তিনি। স্বতন্ত্র প্রার্থীর পোষ্টার ছিরে ফেলার ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘এই টা তাদের কর্মীরাই করে নৌকার কর্মীদের নাম দিচ্ছে আমি তার তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।’
বিএনপি মনোনীত প্রার্থী আব্দুল্লা আল মামুন কচি বলেন,‘সুষ্ট ও নিরোপেক্ষ ভোট হলে বিপুল ভোটে জয়লাভ করবে  আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।’
রেলইঞ্জিন প্রতিকের স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী মুনজুরুল ইসলাম বিমল বলেন,‘নির্বাচনী পরিবেশ এখনো ভালো আছে তবে পৌর সভার ৫নং ওয়ার্ডে আমার লাগানো পোষ্টার ছিরে ফেলেছে নৌকা সমর্থকারা। যদি সুষ্ট ও নিরোপেক্ষ ভোট হয় তবে বিপুল ভোটে জয়লাভ করবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।’
নারিকেল গাছ প্রতিকের আব্দুল হান্নান বলেন, ‘ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ভোট প্রার্থীনা করছের নির্বাচন সুষ্ট হলে জয়ের বিষয়ে তিনি আশাবাদি।’
এই পৌরসভায় ১৭ হাজার ৫৩৫ জন ভোটার এর মধ্যে পুরুষ ৮হাজার ৬৫৪, নারী ৮ হাজার ৮৮১ জন। আগামী ১৬ জানুয়ারী সকাল ৮ টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ৯ টি কেন্দ্রে ভোট গ্রাহণ হবে।

Alert! This website content is protected!