বি.দ্রঃদৈনিক নতুন ভাবনাপত্রিকায় প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার সম্পূর্ন লেখকের/প্রতিনিধির।আমরা লেখক প্রতিনিধির চিন্তা ও মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।প্রকাশিত লেখার সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল সবসময় নাও থাকতে পারে।তাই যে কোনো লেখার জন্য অত্র পত্রিকার কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

তাজা খবর

গোবরডাঙ্গা থেকে গ্যাংটক সাইকেলে পারি দুই যুবকের

মৈনাক গুহ, উত্তর ২৪ পরগনা, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত (প্রতিনিধি)//
গোবরডাঙ্গা থেকে গ্যাংটক প্রায় এক হাজার কিলোমিটার সাইকেলে পারি দুই যুবকের।এমনই সাইকেল ভ্রমণের নজির সৃষ্টি করলো উত্তর ২৪ পরগনার গোবরডাঙা থানা এলাকার গড়পাড়ার বাসিন্দা সাত্যকি ভট্টাচার্য্য ও গোবরডাঙ্গা খাঁটুরা গন্ধর্বপুর এর বাসিন্দা রাহুল নন্দী। গত অক্টোবর মাসের ২৬ তারিখে গোবরডাঙ্গা থেকে যাত্রা শুরু করে দুইজন। পরে ১৬ দিনের মাথায় পুনরায় ফিরে আসে গোবরডাঙ্গায়।
এই সাইকেল ভ্রমণের বিস্তারিত জানতে চাওয়ায় রাহুল নন্দী ও সাত্যকি ভট্টাচার্য জানান “এই সাইকেল ভ্রমনের জন্য প্রস্তুতি শুরু করেন গত মে মাস থেকে,মে মাস থেকে ভ্রমণের জন্য যা যা প্রয়োজন যেমন তাঁবু, স্টোভ সহ অন্যান্য উপকরণ প্রস্তুতি শেষে গত অক্টোবরের ২৬ তারিখে যাত্রা শুরু করে তারা। আর এমন দুঃসাহসিক’ সিদ্ধান্ত নেওয়া,যে সাইকেলে করে গোবরডাঙ্গা থেকে সুদূর পাহাড়ি পথ পেরিয়ে সম্পূর্ণ পাহাড়ি অঞ্চল গ্যাংটক যাওয়ার পরিকল্পনা পরিবারকে জানানোর পরও কোনো বাধা আসে নি পরিবারের তরফে,বরং উৎসাহের সঙ্গে এই দুই বন্ধুর এমন দুঃসাহসিক পরিকল্পনা কে উৎসাহিত করেছিল দুইজনের পরিবার। এমনটাই জানালেন রাহুল ও সাত্যকি।
রাহুল ও সাত্যকি জানান চলার পথের নানা ঘটনা, প্রচুর মানুষের সান্নিধ্য ও সহযোগিতাও পেয়েছেন তারা। সবে মাত্র এই সাইকেল ভ্রমণ থেকে ফিরে এলেও দুজনের মধ্যে শুরু হয়ে গেছে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা, আবারও তারা চান এমন কোন অভিযানে বেরিয়ে পড়তে।
রাহুল ও সাত্যকি এর ফিরে আসার পর ঘটনা জানাজানি হতেই একটা সাড়া পড়ে যায় সমগ্র গোবরডাঙ্গা সহ আশেপাশের অঞ্চলে। স্থানীয় এক বাসিন্দা জানান, রাহুল ও সাত্যকি এর এমন ভ্রমণের জন্য সত্যিই আমরা গোবরডাঙ্গাবাসী হিসেবে গর্বিত।আগে নানা মাধ্যম সূত্রে জানতাম যে বিদেশের কেউ কেউ সাইকেল নিয়ে এইরকম দুঃসাহসী কাণ্ড ঘটিয়েছে। কিন্তু আমাদের ঘরের ছেলেরা, গোবরডাঙ্গার ছেলেরাও মে পারে সেটাই প্রমাণ করলো রাহুল ও সাত্যকি। ওরা এগিয়ে যাক, আরো নজির সৃষ্টি করুক, আমরা গোবরডাঙ্গাবাসী হিসেবে এই রকম কাজে সবসময় ওদের পাশে আছি। আর শুভকামনা রইল ওদের জন্য। ওরা আরো এগিয়ে যাক”।
Alert! This website content is protected!