বি.দ্রঃদৈনিক নতুন ভাবনাপত্রিকায় প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার সম্পূর্ন লেখকের/প্রতিনিধির।আমরা লেখক প্রতিনিধির চিন্তা ও মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।প্রকাশিত লেখার সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল সবসময় নাও থাকতে পারে।তাই যে কোনো লেখার জন্য অত্র পত্রিকার কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

তাজা খবর

ছিন্নমূল মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরে শীতবস্ত্র বিতরণ করলেন এমপি রবি

মোঃ রাহাতুল ইসলাম, সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধিঃ-  
তীব্র শীতকে উপেক্ষা করে গাড়িতে করে শীতবস্ত্র (কম্বল) নিয়ে রাস্তার পাশে থাকা ভিক্ষুক, ছিন্নমূল, দরিদ্র ও অসহায় মানুষের গায়ে শীতবস্ত্র (কম্বল) জড়িয়ে দিলেন অসহায় মানুষের বন্ধু সাতক্ষীরা ০২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি।
এসময় তিনি বলেন, সম্প্রতি শীত জেঁকে বসলে আমি সাতক্ষীরার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে ঘুরে অসহায় মানুষগুলোর কষ্ট অনূভব করে উপলব্ধি করেছি, প্রচন্ড শীত নিবারণের জন্য তাদের ন্যূনতম শীতের গরম কম্বল নেই। তাই তাদের কষ্ট কিছুটা লাঘব করার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে এই সহযোগিতা নিয়ে পাশে দাঁড়িয়েছি।
এছাড়া সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও সাতক্ষীরা পৌর মেয়রকে তাগিদ দেওয়া হয়েছে, তাদের সামর্থ্য অনুযায়ী শীতার্থ অসহায় মানুষগুলোর পাশে এগিয়ে আসার জন্য।
গত কয়েক দিনের শীতে কাবু সাতক্ষীরা সদরের ছিন্নমূল মানুষজন। শুক্রবার (১৮ ডিসেম্বর) বিকাল থেকে রাত পর্যন্ত সাতক্ষীরা সদরের কদমতলা, লাবসা, মাধবকাটিসহ শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে গাড়িতে করে শীতবস্ত্র (কম্বল) নিয়ে রাস্তার পাশে থাকা ভিক্ষুক, ছিন্নমূল, দরিদ্র ও অসহায় গায়ে গরম কাপড় কম্বল পরিয়ে দিলেন সাতক্ষীরাবাসীর প্রাণ প্রিয় নেতা এমপি রবি।
এসময় লাবসা পলিটেকনিক মোড় এলাকার শারীরিক প্রতিবন্ধী ষাশোর্ধ আবু জাফর ও কদমতলা এলাকার ভিক্ষুক ছমিরণ বিবি বলেন,’এমপি স্যার আমাদের মত অসহায় মানুষের কথা চিন্তা কইরা আল্লাহর রহমতে শীতের কষ্ট দুর করতে কম্বল নিয়া আইছে। আল্লাহর কাছে দোয়া করি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যেন তাকে মন্ত্রী করেন।’
প্রকুত দুস্থ ও ছিন্নমূল মানুষগুলো যেন শীতবস্ত্র পান সেজন্যই ঘুরে ঘুরে ৫শতাধিক শীতবন্ত্র কম্বল বিতরণ করেন এমপি রবি।
পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই শুক্রবার সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ভিক্ষুক, দুস্থ, অসহায়, বৃদ্ধা, প্রতিবন্ধী, এতিম, ছিন্নমূল ও শীতার্ত মানুষের মাঝে এ কম্বল বিতরণ করা হয়। এমপি রবির এ গরম কাপড়ের পরশ পেয়ে বেজায় খুশি হন অসহায়রা। কেউ কেউ তার জন্য তাৎক্ষণিক দোয়াও করেন।
Alert! This website content is protected!