বি.দ্রঃদৈনিক নতুন ভাবনাপত্রিকায় প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার সম্পূর্ন লেখকের/প্রতিনিধির।আমরা লেখক প্রতিনিধির চিন্তা ও মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।প্রকাশিত লেখার সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল সবসময় নাও থাকতে পারে।তাই যে কোনো লেখার জন্য অত্র পত্রিকার কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

তাজা খবর

নবীগঞ্জ পৌর নির্বাচনে কাউন্সিরদের পছন্দের শীর্ষে উট পাখি মার্কা

শাহরিয়ার আহমেদ শাওনঃআসছে ২য় ধাপে ১৬ জানুয়ারী আসন্ন নবীগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচন। নির্বাচনকে সামনে রেখে মেয়র কাউন্সিলর দিন রাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। নির্বাচন উপলক্ষে প্রার্থীদের যাছাই বাছাই শেষ করে গতকাল (৩০ ডিসেম্বর) বুধবার প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়।এসময় কাউন্সিলর প্রার্থীদের পছন্দের প্রতীক (মার্কা),হিসাবে উট পাখির কদর লক্ষণীয় দেখা যায়। নির্বাচন কমিশন নির্ধারিত সাধারন কাউন্সিলর প্রার্থীদের জন্য বরাদ্দকৃত উট পাখি প্রতীকটি চেয়েছেন অধিকাংশ প্রার্থী। বিগত বছরেও উট পাখি নিয়ে নির্বাচনে বিজয়ী হয়েছেন অনেকেই।মিছিল ও মাইকিং করতে মুখে মুখে সুর মিলাতে  সবচেয়ে সুবিধা হয় উট পাখির নাম।কাউন্সিলর প্রার্থী তাই মার্কা হিসাবে পছন্দের শীর্ষে উট পাখির চাহিদা ব্যপক দেখা যায়।এছাড়া আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে কাউন্সিলর প্রার্থীদের জন্য প্রতীক ছিল উট পাখি,পানির বোতল,পান্জাবি, টিউবলাইট,ডালিম,ব্লাকবোর্ড, ফাইল কেবিন, স্ক ড্রাইভার সহ ১২ টি নির্বাচনী প্রতীক। এসব প্রতীক থেকে একজন প্রার্থী একটা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করতে পারবেন।এসময় পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডের কাউন্সিলর জানান  বরাদ্দকৃত প্রতীকের মধ্যে অধিকাংশ প্রতীক বুঝতে অসুবিধা হয়।একমাত্র উট পাখিটি চিনতে সুবিধা হয়।অনেক বয়স্ক পুরুষ ও মহিলা  ভোটার মার্কা চিনতে ভুল করেন এতে অনেক সমস্যায় পড়তে হয় প্রার্থীদের। তাই প্রতীক বাছাইয়ের প্রধান আকার্ষন  উট পাখির দিকে।এসময় পৌরসভার ৯ টি ওয়ার্ডে একাধিক কাউন্সিলর  প্রার্থীর উট পাখি  পছন্দ হওয়ায় নির্বাচন কমিশন  লটারির মাধ্যমে প্রতীক বরাদ্দ করেন।

Alert! This website content is protected!