বি.দ্রঃদৈনিক নতুন ভাবনাপত্রিকায় প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার সম্পূর্ন লেখকের/প্রতিনিধির।আমরা লেখক প্রতিনিধির চিন্তা ও মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।প্রকাশিত লেখার সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল সবসময় নাও থাকতে পারে।তাই যে কোনো লেখার জন্য অত্র পত্রিকার কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

তাজা খবর

নবীগঞ্জ সকল  যাত্রীবাহী বাস ইউএনওর কাছে  হস্তান্তর যাত্রী ভোগান্তি চরমে

শাহরিয়ার আহমেদ শাওনঃনবীগঞ্জ সকল যাত্রীবাহীবাস মালিক পক্ষের এক সিদ্ধান্তের  পেক্ষিতে নবীগঞ্জ ইউএনও অফিসে বাস নিয়ে গিয়ে হস্তান্তর করার প্রতক্ষেপ নেন।অবৈধ যানবাহন চলাচলা করায় প্রসাশনের পক্ষ থেকে কোন সহযোগীতা না পাওয়ায় বাস  মালিক পক্ষ এই প্রকৃিয়া করতে বাধ্য হন। গতকাল রবিবার সকাল ১০ টার সময় নবীগঞ্জ উপজেলা ইউএনও অফিসের সামনে শ্রমিকরা  সকল বাস নিয়ে যান।এতে নবীগঞ্জের সাথে সব রোডের যানচলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েন যাত্রীরা।এসময় দেখা যায় অনেক যাত্রী ট্রাক পিকআপ, ভ্যানগাড়ি, অটো রিক্সা দিয়ে গন্তব্য স্থলে পৌছান। এতে ভাড়াও দিতে হয় যাত্রীদের দিগুন।জানাযায় হবিগঞ্জ জেলার সড়ক ও মহা সড়কে অবৈধ যানবাহন চলাচল বন্ধের দাবিতে গত ১৭ নভেম্বর হবিগঞ্জ প্রেসক্লাবের সংবাদ সম্মেলন করেন মোটর মালিক গ্রুপ জেলা বাস মিনিবাস কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের নেতা কর্মীরা।সংবাদ সম্মেলনে নেতারা বলেন  সড়ক মহা সড়কে সি এনজি অটোরিক্সা অবৈধ যানচলা চল বন্ধ না হলে ২৮ নভেম্বর মধ্যে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তারেই প্রেক্ষিতে প্রসাশনের কোন ব্যবস্থা বা সহযোগীতা না পাওয়ায় মালিক পক্ষ বাধ্যে হয়ে সকল বাস ও মিনিবাস  উপজেলা নির্বাহী কর্মকতার কাছে  হস্তান্তর করেছেন।যানবাহন শ্রমিকদের অভিযোগ অবৈধ যানচলাচল করার কারনে রাস্তা ঘাটে দূর্ঘটনা হচ্ছে, যততত্র পার্কিং যেখানে সেখানে যাত্রী উঠানামা সহ লাইসেন্স বিহীন  অদক্ষ ড্রাইবারের কারনে বাস ও মিনি বাস নির্বিকার হয়ে আছে। এজন্য সিএনজি অটোরিক্সা টমটম ছোট ছোট যানবাহন কে দায়ী করা হয়।

Alert! This website content is protected!