বি.দ্রঃদৈনিক নতুন ভাবনাপত্রিকায় প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার সম্পূর্ন লেখকের/প্রতিনিধির।আমরা লেখক প্রতিনিধির চিন্তা ও মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।প্রকাশিত লেখার সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল সবসময় নাও থাকতে পারে।তাই যে কোনো লেখার জন্য অত্র পত্রিকার কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

তাজা খবর

পটুয়াখালীতে মৎস্যজীবির ঘর পুড়িয়ে দিয়েছে দূর্বৃত্তরা

পটুয়াখালী প্রতিনিধিঃপটুয়াখালীতে মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে মৎস্যজীবির ঘর পুড়িয়ে দিয়েছে দূর্বৃত্তরা। রবিবার (৬ ডিসেম্বর) সদর উপজেলার আউলিয়াপুর মুচির পোল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী হাসিনা বেগম বলেন, শনিবার দুপুরে আউলিয়াপুর ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর আজিজ এর ছেলে রনি আমাদের নদীতে মাছ ধরতে নিষেধ করে। নদীতে মাছ ধরায় চাঁদা দাবি করে। আমরা চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে মেম্বরের ছেলেরা তার দলবল নিয়ে আমাদের উপর হামলা চালায়। পরে আমাদের মারধর করে ওইখান থেকে চলে যায়। উল্টো আমাদের নামে মামলা করে। রবিবার রাতে আমাদের ঘরে তারা আগুন জালিয়ে দেয়।

ছেলে হারুনের বৌ হামিদা বলেন, আজিজ মেম্বার ও তার ছেলে রনি আমার স্বামীকে নদীতে মাছ ধরতে নিষেধ করে। তার নিষেধ করা অমান্য করে মাছ ধরায় মারধর করে ও হুমকি ধামকি দিয়ে চলে যায় এবং রাতের আধারে ঘরে আগুন জ্বালিয়ে দেয়। ঘরের ভিতর থেকে কিছু আনতে পারিনি। এতে প্রায় ৭ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়।

নাম না প্রকাশ করারশর্তে স্থানীয় বাসিন্দা বলেন, এতো নিষ্ঠুর মানুষ কি ভাবে হয়। হাসিনা বেগম যে গোসল করে একটা কাপড় পরবে সেটাও নাই। পরিবারটা একেবারে নিঃশেষ হয়ে গেছে।

আউলিয়াপুর ৯ নং ওয়ার্ডের জাহাঙ্গীর আজিজ বলেন, নদীতে সবাই মাছ ধরে তবে আমরা কেন তাদের কাছে চাঁদা চাবো। এটা আমাদের ফাঁসানোর সর্যন্ত। তারা নিজেরাই নিজের বাসায় আগুন দিয়ে আমাদের ফাঁসাচ্ছে।

এবিষয়ে আউলিয়াপুর ইউনিয়নের বিট অফিসার এসআই মোঃ মেহেদী হাসান জানান,আগুন লাগার সঙ্গে সঙ্গে আমরা সেখানে উপস্থিত হই এবং ভুক্তভোগীরা থানায় লিখিত অভিযোগ দিলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Alert! This website content is protected!