বি.দ্রঃদৈনিক নতুন ভাবনাপত্রিকায় প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার সম্পূর্ন লেখকের/প্রতিনিধির।আমরা লেখক প্রতিনিধির চিন্তা ও মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।প্রকাশিত লেখার সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল সবসময় নাও থাকতে পারে।তাই যে কোনো লেখার জন্য অত্র পত্রিকার কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

তাজা খবর

পদ্ধতিগত পরিবর্তনের মাধ্যমে ভূমি ব্যবস্থাপনা ঢেলে সাজানো হচ্ছে

স্টাফ রিপোর্টার // সৈকত মন্ডলঃ- 
ভূমি ব্যবস্থাপনায় ডিজিটালাইজেশন হচ্ছে, প্রয়োজন মাঠ পর্যায়ে সেবা প্রদানকারীর মানসিকতার পরিবর্তন। এদুয়ের সমন্বয় না হলে জনগন কাঙ্খিত সেবা পাবে না। মানসিকতা ও পদ্ধতির পরিবর্তনের সমন্বয়ে ভূমি ব্যবস্থাপনাকে ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী আজ (মঙ্গলবার) খুলনায় টেকসই ডিজিটাল ভূমি তথ্য ব্যাংক উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।
    খুলনা জেলা প্রশাসকের উদ্যোগে তৈরি করা দেশের প্রথম টেকসই ডিজিটাল ভূমি তথ্য ব্যাংক উদ্বোধন উপলক্ষে খুলনা জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে ভূমিমন্ত্রী বলেন, আমরা জনগণকে সেবা দিতে এসেছি, এটা মুখে নয় কাজের মাধ্যমে প্রমাণ করতে হবে। এজন্য ভূমি অফিসে না এসেও যেন ভূমি সংক্রান্ত সকল সেবা মানুষ ঘরে বসে পেতে পারে তার জন্য সম্পূর্ণ ডিজিটাইজেশনের দিকে আমরা ধীরে ধীরে এগিয়ে যাচ্ছি। টেকসই ডিজিটাল ভূমি তথ্য ব্যাংক সেই উদ্যোগকে ত্বরান্বিত করবে। এর মাধ্যমে সরকারি সম্পত্তি ব্যবস্থাপনা যেমন সহজ হবে তেমনি জনগণও হয়রানিমুক্ত ভূমিসেবা পাবে। তিনি খুলনা জেলা প্রশাসনের এই উদ্যোগকে আরও উন্নত করে সারাদেশে বাস্তবায়ন করার ঘোষণা দেন।
    অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, ভূমি মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান, ভূমি সংস্কার বোর্ডের চেয়ারম্যান মোঃ মোস্তফা কামাল, খুলনার বিভাগীয় কমিশনার মোঃ ইসমাইল হোসেন, খুলনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশীদ, পুলিশ সুপার এসএম শফিউল্লাহ, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমডিএ বাবুল রানা প্রমুখ। সভাপতিত্ব করেন খুলনা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন।
    উল্লেখ্য, টেকসই ডিজিটাল ভূমি তথ্য ব্যাংক তৈরির কাজ ২০১৯ সালের ১ অক্টোবর শুরু হয়। এই তথ্য ব্যাংকে খুলনা জেলার সকল অর্পিত সম্পত্তি, পরিত্যাক্ত সম্পত্তি, হাটবাজার, খাসজমি ও জনমহলের ছবিসহ বর্তমান অবস্থার তথ্য, এস এ খতিয়ান, আর এস খতিয়ান সম্বলিত তথ্য সন্নিবেশিত আছে। ফলে রাজস্ব আদায় নিশ্চিতকরণের পাশাপাশি সরকারি সম্পত্তি দখলমুক্ত রাখা এবং ভূমি ও সায়রাত ব্যবস্থাপনায় আমূল পরিবর্তন এসেছে। যে কেউ িি.িশযঁষহধষংস.পড়স ঠিকানায় প্রবেশ করে খুলনা জেলার সকল সরকারি সম্পত্তির বিস্তারিত জানতে পারবেন।
Alert! This website content is protected!