বি.দ্রঃদৈনিক নতুন ভাবনাপত্রিকায় প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার সম্পূর্ন লেখকের/প্রতিনিধির।আমরা লেখক প্রতিনিধির চিন্তা ও মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।প্রকাশিত লেখার সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল সবসময় নাও থাকতে পারে।তাই যে কোনো লেখার জন্য অত্র পত্রিকার কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

তাজা খবর

পুরান ঢাকায় উচ্ছেদ অভিযান চালাচ্ছে বিআইডব্লিউটিএ

পুরান ঢাকার চকবাজার থানার কামালবাগ এলাকায় বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে উচ্ছেদ অভিযান চালাচ্ছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)।

আজ সোমবার সকাল সাড়ে ১০টা থেকে এই অভিযান শুরু হয়েছে। আজ যে এলাকায় বিআইডব্লিউটিএ উচ্ছেদ অভিযান চালাচ্ছে, সেটি ঢাকা-৭ আসনের সাংসদ হাজি সেলিমের এলাকা।

নদীতীরে পুনর্দখল ঠেকাতে গতকাল রোববার ইমামগঞ্জ ও সোয়ারীঘাট এলাকায় উচ্ছেদ অভিযান চালানো হয়েছিল। ‌গতকাল সাংসদ সেলিমের একটি স্থাপনার অবৈধ অংশ ভেঙে ফেলা হয়। আরেকটি স্থাপনার অবৈধ অংশ অবশ্য অভিযানের আগেই অনুসারীদের দিয়ে সরিয়ে ফেলেছিলেন হাজি সেলিম।

সরেজমিনে দেখা গেছে, উচ্চ আদালতের স্থগিতাদেশ থাকার কারণে অনেকগুলো স্থাপনায় আজ উচ্ছেদ অভিযান চালাতে পারছে না বিআইডব্লিউটিএ। কামালবাগ এলাকায় যেখান থেকে উচ্ছেদ অভিযান শুরু হয়েছিল, সেখানে কয়েকটি বহুতল ভবন ছিল, যার একাংশ নদীর সীমানার মধ্যে পড়েছে।

বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান। আজ সকালে কামালবাগ এলাকায়  

বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান। আজ সকালে কামালবাগ এলাকায়  
অভিযানসংশ্লিষ্টদের ভাষ্য, উচ্চ আদালত থেকে উচ্ছেদ অভিযান চালানোর বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা থাকার কারণে তারা ওই ভবনগুলোর অবৈধ অংশ ভাঙতে পারেনি।বিআইডব্লিউটিএর এই অভিযানে নেতৃত্ব দিচ্ছেন সংস্থাটির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহবুব জামিল। ঢাকা নদীবন্দরের নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তা গুলজার আলী, সহকারী পরিচালক রাজাউল করিম প্রমুখ।
পুরান ঢাকার কামালবাগে বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান আজ সকালে।

পুরান ঢাকার কামালবাগে বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান আজ সকালে। 
উচ্ছেদ অভিযানে বিপুলসংখ্যক আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের রাখা হয়েছে। অভিযান ঘিরে কয়েক হাজার উৎসুক জনতা ঘটনাস্থলে উপস্থিত রয়েছেন। একটি এক্সকাভেটর দিয়ে নদীর তীরে গড়ে ওঠা এসব অবৈধ স্থাপনা ভেঙে দেওয়া হচ্ছে।
Alert! This website content is protected!