বি.দ্রঃদৈনিক নতুন ভাবনাপত্রিকায় প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার সম্পূর্ন লেখকের/প্রতিনিধির।আমরা লেখক প্রতিনিধির চিন্তা ও মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।প্রকাশিত লেখার সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল সবসময় নাও থাকতে পারে।তাই যে কোনো লেখার জন্য অত্র পত্রিকার কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

তাজা খবর

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

উৎপল কুমার, বগুড়া জেলা প্রতিনিধিঃ
গত ২৬ ডিসেম্বর ২০২০ স্থানীয় কয়েকটি পত্রিকায় ‘বিহার বন্দরে মহিদুল ইসলামকে গ্রেফতারের দাবীতে মানববন্ধন’ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদ প্রকাশের তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। প্রকৃতপক্ষে রাজনৈতিকভাবে ফায়দা হাসিল ও আমার ছেলেকে সমাজের প্রতি হেয় প্রতিপন্ন করতে সম্পূর্ণ উদ্দেশ্যে প্রণোদিত ভাবে বিএনপি-জামাত জোটের কু-চক্রের অংশ হিসেবে ভাড়াটিয়া গুন্ডা ও সন্ত্রাসী বাহিনী দ্বারা এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। এছাড়াও উক্ত মানববন্ধনে আমার ছেলের নির্মাণাধিন বাড়িটি অবৈধভাবে ভাঙচুর করা হয়।
আমার ছেলে মোঃ মহিদুল ইসলাম প্রায় ১২ দিন যাবত করোনাসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে অসুস্থ অবস্থায় স্থানীয় একটি ক্লিনিকে এবং সর্বশেষ বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে। শিমুল হত্যাকান্ডের সাথে কোন ভাবেই আমার ছেলে জড়িত নয়।
উক্ত মানববন্ধনে গুটিকয়েক ব্যক্তি আমার ছেলেকে অন্যায়ভাবে শিমুল হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত ও ফাঁসানোর চেষ্টা করেছে। প্রকৃতপক্ষে আমার ছেলে ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে জনগণের বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়ে ইউনিয়নের সকল প্রান্তে উন্নয়নের ছোয়াসহ বিহার ইউনিয়নকে মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদমুক্ত আবাসস্থল করে গড়ে তুলেছে। যাতে করে আমার ছেলের বিরোধীমহল ঈর্ষাম্বিত হয়ে আমার ছেলেকে বিভিন্নভাবে ফাঁসানোর অপচেষ্টায় লিপ্ত আছে।
আমি এঘটনার তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। সেই সাথে আমার ছেলের বিরুদ্ধে অপপ্রচারকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জোড় দাবী করছি। এছাড়াও প্রিয় সাংবাদিকদের বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের অনুরোধ করছি।
প্রতিবাদকারী
মহিদুল ইসলামের পরিবার ও ইউনিয়নবাসীর পক্ষে
মেহেরুন নেছা
স্বামী-বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃত আলহাজ্ব হাফিজার রহমান।
Alert! This website content is protected!