বি.দ্রঃদৈনিক নতুন ভাবনাপত্রিকায় প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার সম্পূর্ন লেখকের/প্রতিনিধির।আমরা লেখক প্রতিনিধির চিন্তা ও মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।প্রকাশিত লেখার সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল সবসময় নাও থাকতে পারে।তাই যে কোনো লেখার জন্য অত্র পত্রিকার কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

তাজা খবর

প্রধান মন্ত্রীর অঙ্গীকার গৃহহীন থাকবে না কোন পরিবার জেলা প্রশাসক ড. আতাউল গনি

নাগরপুর(টাঙ্গাইল)প্রতিনিধি:
মুজিববর্ষের শুরুতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মানবিক প্রকল্পের ঘোষনা অনুযায়ী সারা দেশে গৃহহীনদের জন্য জমি সহ ঘর নির্মানের কাজ শুরু হয়েছে।  টাঙ্গাইলের নাগরপুরে  মঙ্গলবার (৫ জানুয়ারি) সকালে নাগরপুর উপজেলার সহবতপুর ইউনিয়নের বাদেনলসন্ধা  গ্রামে ৭টি ঘর নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করেন জেলা প্রশাসক ড. আতাউল গনি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার সিফাত-ই-জাহান, সহকারী কমিশনার (ভূমি) তারিন মসরুর, উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ মাহাবুব রহমান, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ আবু বকর, উপজেলার সহবতপুর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ তোফায়েল আহমেদ মোল্লা প্রমুখ।
গৃহনির্মাণ কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন কালে জেলা প্রশাসক আতাউল গনি বলেন, মুজিববর্ষে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক অঙ্গীকার গৃহহীন থাকবে না কোন পরিবার। ইতিমধ্যে নাগরপুর উপজেলায় প্রথম দাপে ১২ টি ইউনিয়নের মধ্যে ১০ টি ইউনিয়নে ৩০ টি গৃহহীন পরিবারকে জমি সহ ১টি করে ঘর নির্মাণ করে দেয়ার কাজ চলছে। পরবর্তীতে বাকী ২টি ইউনিয়নেও দেয়া হবে। তিনি আরো বলেন, টাঙ্গাইল জেলায় প্রধানমন্ত্রী সরকারি অর্থে ৫৬৪টি গৃহহীন পরিবারকে ঘর করে দিচ্ছেন। এছাড়া বেসরকারি ভাবে জেলা আওয়ামী লীগের সহায়তায় ৫০টি, স্থানীয় এমপি, ধনাঢ্য ব্যক্তি, জেলা- উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তাবৃন্দ ও জনপ্রতিনিধিদের সহযোগিতায় আমরা আরো ১০০টি ঘর নির্মাণ করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি পেয়েছি। ইতিমধ্যে জেলা প্রশাসকের পক্ষে থেকে টাঙ্গাইলে এক গৃহহীন পরিবারকে ঘর করে দেওয়া হয়েছে। আমি মনে করি টাঙ্গাইল জেলায় গৃহহীনদের ঘর করে দেওয়াটা একটি সামাজিক আন্দোলনে রুপান্তরিত হয়েছে। আগামী জানুয়ারীর ১৫ তারিখের মধ্যে চলমান কাজের সমাপ্ত হবে বলে তিনি জানান।
পরে উপজেলার সহবতপুর ইউনিয়ন ভূমি অফিস, পরিষদ, নাগরপুর থানা ও উপজেলা ভূমি অফিস সহ উপজেলা নির্বাহী কার্যালয় পরিদর্শন করেন।

Alert! This website content is protected!