বি.দ্রঃদৈনিক নতুন ভাবনাপত্রিকায় প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার সম্পূর্ন লেখকের/প্রতিনিধির।আমরা লেখক প্রতিনিধির চিন্তা ও মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।প্রকাশিত লেখার সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল সবসময় নাও থাকতে পারে।তাই যে কোনো লেখার জন্য অত্র পত্রিকার কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

তাজা খবর

বাগেরহাটের চিতলমারীতে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে দুর্নীতি-অনিয়মের অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার : সৈকত মন্ডল
বাগেরহাটের চিতলমারীর সন্তোষপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বিউটি
আক্তারের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরণের দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ
উঠেছে। সুনির্দিষ্ট ১৪ টি অভিযোগ এনে চিতলমারী উপজেলা
প্রশাসন ও দুর্নীতি দমন কমিশন ঢাকা বরাবরে লিখিত অভিযোগ দায়ের
করেছেন ওই ইউনিয়নের মুক্তিযোদ্ধা কমা-ার মোঃ হামিদ আলী,
ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ রসুল মাঝি ও সাধারণ সম্পাদক
হরেন্দ্র নাথ শিকদার।
অভিযোগপত্র সূত্রে জানা গেছে, চেয়াম্যান বিউটি আক্তার মাসে মাত্র
১-২ দিনের বেশি অফিসে থাকেন না। অবৈধভাবে ইউনিয়নের
জনসাধারণের কাছ থেকে জন্ম নিবন্ধন ফি, প্রত্যয়নপত্র বাবদ ৩শ থেকে
৫শ টাকা, ওয়ারেশ কায়েম, ট্রেড লাইসেন্স বাবদ ৫শ থেকে ২শ হাজার
টাকা পর্যন্ত গ্রহণ করেণ। এ ছাড়াও ৪০ দিনের কর্মসূচি,
এল,জি,এস,পির টাকা, টিয়ার-কাবিখা টাকাসহ সব ধরণের প্রকল্পের
টাকা দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন ভুয়া বিল ভাউচারের মাধ্যমে আত্মসাত
করে আসছেন। এমনকি বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কাছ থেকে তিনি
প্রত্যয়নপত্র ও ওয়ারেশকায়েম সদনের ফি বাবদ ২শ থেকে ৫শ টাকা পর্যন্ত
অবৈধ ভাবে গ্রহণ করে আসছেন। প্রধানমন্ত্রী প্রদত্ত পানীর ট্যাংকি ২
থেকে ৩ মাস ব্যাবহার করার পরে অন্য উপজেলায় হস্তান্তর করেন।
সন্তোষপুর ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমা-ার বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ হামিদ
আলী জানান, ইউনিয়নের কোন মুক্তিযোদ্ধা মারা গেলে তাদের জন্মসনদ,
মৃত্যুসনদ ও প্রত্যয়নপত্র নিতে গেলে বিভিন্ন হারে টাকা প্রদান করতে
হয়।
এ ব্যাপারে সন্তোষপুর ইউপি চেয়ারম্যান বিউটি আক্তার সব অভিযোগ
অস্বীকার করে মুঠো ফোনে সাংবাদিকদের জানান, আসন্ন ইউনিয়ন
পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রতিপক্ষরা আমার সুনাম সুখ্যাতি
নষ্ট করতে এ মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করিয়েছেন।

Alert! This website content is protected!