বি.দ্রঃদৈনিক নতুন ভাবনাপত্রিকায় প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার সম্পূর্ন লেখকের/প্রতিনিধির।আমরা লেখক প্রতিনিধির চিন্তা ও মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।প্রকাশিত লেখার সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল সবসময় নাও থাকতে পারে।তাই যে কোনো লেখার জন্য অত্র পত্রিকার কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

তাজা খবর

বানারীপাড়ার একজন মিলির মমতা……

রাহাদ সুমন:-
একজন আতিয়া আলম মিলির মানবিকতাও   মমতায় মুদ্ধ বানারীপাড়া ও উজিরপুরের  সাধারণ মানুষ। তিনি বরিশাল-২ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সভাপতি এবং স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য মো. শাহে আলমের সহধর্মীনি। স্বামীর মানবিকতার অন্তঃমিল খুঁজে পাওয়া যায় তার মানবিক গুনাবলীর মাঝে।
শীতকাল শুরু হওয়ার পর থেকেই তিনি বরিশালের বানারীপাড়া ও উজিরপুর উপজেলার আবাসন ও গুচ্ছ গ্রামসহ বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে ঘুরে দুস্থ শীতার্তদের মাঝে
মাদার অব হিউম্যানিটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার কম্বল বিতরণ করছেন।
৫ জানুয়ারি মঙ্গলবার সকালবেলা কনকনে শীতকে উপেক্ষা করে নিঃস্বার্থ সমাজসেবী আতিয়া আলম মিলি সাধারণ মানুষের দুয়ারে দুয়ারে গিয়ে নিজ মাতা-পিতার মতো পরম যত্নে কম্বল জড়িয়ে দিচ্ছেন বৃদ্ধজনদের গায়ে। এ ছাড়া দিনভর তিনি উজিরপুর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় দুস্থ শীতার্ত পরিবারের মাঝে কম্বল বিতরণ করেন।

এ সময় তার সাথে উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-আহবায়ক প্রভাষক ইয়াসমিন রেজা নির্মলা, যুবলীগ নেতা যোবায়ের আহম্মেদ রুথেন, ছাত্রলীগ নেতা এম সাইফুল ইসলাম প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন। এদিকে আতিয়া আলম মিলি কোভিড-১৯ প্রাণঘাতি নভেল করোনাভাইরাস শুরু হওয়ার পর থেকে অব্যাহতভাবে অসহায় দুস্থ পরিবারের মাঝে খাদ্য ও নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য সামগ্রী বিতরণ করেন। তিনি বানারীপাড়ার খেজুরবাড়ি আবাসনে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারকে ১০টি ঘর নতুন করে নির্মাণ করে দেন। এছাড়াও এলাকার উন্নয়নে তিনি সংসদ সদস্য স্বামীর সতীর্থ ছায়া সঙ্গী। তার এ মানবিকতায় তিনি এলাকাবাসীর মনের মনিকোঠায় ঠাঁই করে নেওয়ার পাশাপাশি সর্বমহলে প্রশংসিত।

Alert! This website content is protected!