বি.দ্রঃদৈনিক নতুন ভাবনাপত্রিকায় প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার সম্পূর্ন লেখকের/প্রতিনিধির।আমরা লেখক প্রতিনিধির চিন্তা ও মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।প্রকাশিত লেখার সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল সবসময় নাও থাকতে পারে।তাই যে কোনো লেখার জন্য অত্র পত্রিকার কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

তাজা খবর

বানারীপাড়ায় আওয়ামী লীগ নেতার দখলীয় সেই খাল উদ্ধারে এসিল্যান্ডের উদ্যোগ

রাহাদ সুমন,বানারীপাড়া(বরিশাল)প্রতিনিধি॥ বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) নিশাত শারমিন  উপজেলার উদয়কাঠীতে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি গোলাম মোস্তফা তালুকদারের অবৈধ দখলীয়  শত বছরের রেকর্ডিও খাল উদ্ধারের উদ্যোগ নিয়েছেন। তিনি  অভিযোগ পেয়ে  ২১ ফেব্রুয়ারী রোববার সকালে ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযোগের সত্যতা পেয়ে অভিযুক্ত গোলাম মোস্তফা তালুকদারকে নিজ উদ্যোগে খালটি দখলমুক্ত করার নির্দেশ দেন। ওই নির্দেশের প্রেক্ষিতে তার সঙ্গে উদয়কাঠি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম মোস্তফা তালুকদার সোমবারের মধ্যে ভরাট করা মাটি সরিয়ে খালটিকে পূর্বের রূপে ফিরিয়ে দেওয়ার অঙ্গীকার করেন। এর আগে ২০ ফেব্রুয়ারি  শনিবার সকালে উদয়কাঠি ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডে ইউনিয়ন আওয়ামী  লীগের সভাপতি গোলাম মোস্তফা তালুকদার  জনগুরুত্বপূর্ণ খালের ভিতরে বাধ দিয়ে শ্রমিকের মাধ্যমে মাটি দিয়ে খাল ভরাট কাজ শুরু করেন। খবর পেয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান রাহাদ আহম্মেদ ননী ঘটনাস্থলে গিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রিপন কুমার সাহা ও সহকারী কমিশনার(ভূমি) নিশাত শারমিনকে বিষয়টি মুঠোফোনে জানিয়ে খাল ভরাট কাজ বন্ধ করে দেন। উল্লেখ্য ওই খালটি দিয়ে এলাকাবাসী চলাচল ও  খালের পানি কৃষি কাজে ব্যবহার করে থাকেন। এছাড়া খালটি এলাকার জলাবদ্ধতা নিরসনেও ভূমিকা রাখে। সম্প্রতি জনগুরুত্বপূর্ণ  খালটি রক্ষায় এর ওপর  কয়েক লাখ টাকা ব্যয়ে সরকারীভাবে কালভার্ট নির্মাণ করা হয়েছে। খালের সম্পত্তি নিজেদের মালিকানা দাবি করে তা ভরাট করে দখল চেষ্টা চালান ওই আওয়ামী লীগ নেতা। এ নিয়ে এলাকাবাসীর মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। প্রভাবশালী ওই আওয়ামী লীগ নেতাকে বাধা দিতে ভয় পেয়ে তারা স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান রাহাদ আহম্মেদ ননীর শরনাপন্ন হন। এদিকে জনগুরুত্বপূর্ণ খালটিকে অবৈধ দখলমুক্ত করার উদ্যোগ নেওয়ায় এলাকাবাসী উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) নিশাত শারমিনকে কৃতজ্ঞচিত্তে সাধুবাদ জানিয়েছেন।

Alert! This website content is protected!