বি.দ্রঃদৈনিক নতুন ভাবনাপত্রিকায় প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার সম্পূর্ন লেখকের/প্রতিনিধির।আমরা লেখক প্রতিনিধির চিন্তা ও মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।প্রকাশিত লেখার সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল সবসময় নাও থাকতে পারে।তাই যে কোনো লেখার জন্য অত্র পত্রিকার কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

তাজা খবর

বানারীপাড়ায় শেখ রাসেল শিশু কিশোর  পরিষদের নব গঠিত কমিটির সভাপতিকে নিয়ে বিতর্ক

রাহাদ সুমনঃ

বরিশালের বানারীপাড়ায় শেখ রাসেল জাতীয় শিশু কিশোর পরিষদের নব-গঠিত উপজেলা কমিটির সভাপতি মো. আবুল বাশার বাদশাকে নিয়ে বিতর্ক ও মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

নব-নির্বাচিত সভাপতি আওয়ামী লীগ পরিবারের সন্তান নয় এবং তার পরিবারের কোন সদস্য স্বাধীনতার স্ব-পক্ষের দল আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে কখনও জড়িত ছিলোনা বলে অভিযোগ উঠেছে।
এমন অভিযোগ করেন রাজনীতিতে অপরিচিত মুখ
 আবুল বাশার বাদশার জন্মস্থান উপজেলার ইলুহার ইউপির চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং বানারীপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. রফিকুল ইসলাম, যুবলীগ নেতা সোহেল সিকদার, কামরুজ্জামান পলাশ, ছাত্রলীগের যুগ্ম-আহবায়ক মিজানুর রহমান,ফাইজুল হক  সহ নেতৃবৃন্দ।
নেতৃবৃন্দরা জানান, স্বাধীনতার চেতনা বাস্তবায়ন হবে এমন একটি পরিবার থেকে একজনকে সংগঠনের দায়িত্ব দিলে তা মাঠের আওয়ামী লীগ মেনে নিবে।  তবে অনুপ্রবেশকারী ও হাইব্রিড
সুখ পাখিদের কোন ক্রমেই মানা হবেনা। এদেরকে কখনও আওয়ামী লীগের পক্ষে কথা বলতে দেখেনি এই জনপদের মানুষ। বরং আওয়ামী লীগের বিরোধী শিবিরে থেকে কাজ করেছেন এরা। মুজিব কোট পড়লেই যে কেউ আওয়ামী লীগ হয়ে যায়না বলেও নেতৃবৃন্দরা মন্তব্য করেন।
অচিরেই সভাপতির বিরুদ্ধে শেখ রাসেল শিশু কিশোর পরিষদের বরিশাল জেলা ও বানারীপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগ বরাবরে লিখিত অভিযোগ দেয়া হবে। প্রসঙ্গত গত ৩০ নভেম্বর
 আবুল বাশার বাদশাকে সভাপতি ও এনায়েত হোসেন মোল্লাকে সাধারণ সম্পাদক করে বানারীপাড়া উপজেলা শাখা শেখ রাসেল শিশু কিশোর পরিষদের  ৩৭  সদন্য বিশিষ্ট  কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির সভাপতি সহ বেশ কয়েকজনকে নিয়ে বিতর্ক দেখা দিয়েছে।
Alert! This website content is protected!