বি.দ্রঃদৈনিক নতুন ভাবনাপত্রিকায় প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার সম্পূর্ন লেখকের/প্রতিনিধির।আমরা লেখক প্রতিনিধির চিন্তা ও মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।প্রকাশিত লেখার সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল সবসময় নাও থাকতে পারে।তাই যে কোনো লেখার জন্য অত্র পত্রিকার কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

তাজা খবর

মাদারীপুরে ভন্ড প্রেমিক সেজে বিয়ে অতপর অভিনব প্রতারণা

মুমতাজুল কবীর,মাদারীপুর:
মাদারীপুরের শিবচরে এক ভন্ড প্রেমিক সেজে বিয়ে করার একদিন পরে অভিনব
প্রতারণার মাধ্যমে শ্বশুর বাড়ি বেড়াতে এসে রাতেই নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার ও
মোবাইল এবং ঘরের মূল্যবান জিনিসপত্রসহ প্রায় দুই লাখ টাকার সম্পদ নিয়ে
পালিয়ে গেছে হৃদয় নামে পরিচয় দেওয়া প্রতারক। বুধবার রাতে শিবচর উপজেলার
পাঁচ্চর ইউনিয়নের গোয়ালকান্দা গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটেছে। এ নিয়ে এলাকায়
বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।
স্থানীয় ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, শিবচর উপজেলার পাচ্চর গোয়ালকান্দা
গ্রামের হযরত বেপারীর বিধবা মেয়ে রোকেয়া বেগমের (২৮) সাথে মোবাইল
ফোনের মাধ্যমে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে হৃদয় (৩৫) নামের এক যুবকের। বেশ
কয়েক দিন মোবাইলে কথা বলে প্রতারক হৃদয়। প্রতারক হৃদয় রাজধানীর গাবতলীর
ঠিকানা দিয়ে তার বাবা-মা বেঁচে নেই বলে ভালোবাসার অভিনয় করে। এক
পর্যায়ে বিয়ের প্রস্তাব দেয় রোকেয়াকে। পরবর্তীতে রবিবার (২৯ ডিসেম্বর)
রোকেয়াকে বিয়ে করে শশুরবাড়ি উঠে বর বেশী প্রতারক। পরদিন (৩০ ডিসেম্বর)
রাতে কৌশলে স্বর্ণালংকার, টাকা, মোবাইল এবং ঘরের মূল্যবান জিনিসপত্রসহ
প্রায় দুই লাখ টাকার সম্পদ নিয়ে মেহমান আসবে বলে শশুর বাড়ি থেকে বের হয়ে
উধাও হয় ওই প্রতারক।
ক্ষতিগ্রস্ত রোকেয়া আক্তার বলেন, ‘হৃদয় আমার সাথে প্রেমের অভিনয় করে আমাকে
বিয়ে করে। বিয়ের পরের দিন সে কৌশলে আমার ঘরে থাকা টাকা, স্বর্ণালংকার,
মোবাইলসহ মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে পালিয়ে গেছে। আমি এই প্রতারকের
বিচার চাই। আমার স্বামী কয়েক বছর ধরে মারা গেছেন। নতুন ঘর সংসারের আশায়
আমি ওকে বিয়ে করেছি। ওযে আমার সাথে এমন প্রতারণা করবে আমি বুঝতেও
পারিনি।’
শিবচর থানা অফিসার ইনচার্জ মো. মিরাজ হোসেন বলেন, এ ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত
পরিবারের পক্ষ থেকে কেউ এখন পর্যন্ত থানায় কোন লিখিত অভিযোগ দেয়নি।
লিখিত অভিযোগ পেলে আমরা আইনগত ব্যবস্থা নেব।

Alert! This website content is protected!