বি.দ্রঃদৈনিক নতুন ভাবনাপত্রিকায় প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার সম্পূর্ন লেখকের/প্রতিনিধির।আমরা লেখক প্রতিনিধির চিন্তা ও মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।প্রকাশিত লেখার সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল সবসময় নাও থাকতে পারে।তাই যে কোনো লেখার জন্য অত্র পত্রিকার কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

তাজা খবর

সিরাজগন্জে কামারখন্দে মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে জাতীয় পতাকার অবমাননা

মোঃ আজাদুল ইসলাম,সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধিঃ
২১ ফেব্রুয়ারি শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে কামারখন্দ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে জাতীয় পতাকার অবমাননা করা হয়েছে। একটি সুন্দর ফ্লাগ পোলে আজ জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করার কথা থাকলেও সেখানে ছোট্ট একটি বাশের মাথায় জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত না রেখে সম্পূর্ণ পতাকা উত্তোলন করে রাখা হয়েছে। মুক্তিযোদ্ধাদের দ্বারা আজকের এই দিবসে জাতীয় পতাকার অবমাননা নিয়ে এলাকায় চলছে নানান রকমের আলোচনা সমালোচনা।
তথ্যের ভিত্তিতে ২১ ফেব্রুয়ারি সকালে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে গিয়ে দেখা যায় বহুতল ভবনের ছাদের ছোট্ট একটি বাশের মাথায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা আছে। আজকের দিনে অন্তত এই ছোট্ট বাশে ভুল ভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলনকে অনেকেই ভাষা শহীদদের প্রতি অপমান বলেও মন্তব্য করছেন।
২১ ফেব্রুয়ারি শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতিষ্ঠান উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে পতাকার অবমাননার বিষয়ে কামারখন্দ উপজেলা সদ্য সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার গাজী মোঃ আমিনুল ইসলাম বলেন, এটা হয়ে থাকলে তা চরম অন্যায় হয়েছে। তবে আমি সেটার দায়িত্বে নেই জানিয়ে তিনি বলেন, ভবনটি এখনো আমাদের হাতে হস্তান্তর করা হয়নি। বর্তমানে ইউএনও মহোদয় দেখাশোনা করছেন। এবিষয়ে তিনিই ভালো বলতে পারবেন।
এবিষয়ে কামারখন্দ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোছাঃ মেরিনা সুলতানা বলেন, ভবনটির এখনো উদ্ভোধন বা কার্যক্রমই শুরু হয়নি। জামতৈল বাজারে একটি অস্থায়ী কার্যালয়ে তাদের কার্যক্রম চলছে। তাই সেখানে পতাকাই উত্তোলন হবার কথা নয়। আমি জানিনা কে বা কারা এটা করেছেন। আমি এখনই খোজ নিচ্ছি বলেও জানান এই কর্মকর্তা।
Alert! This website content is protected!