বি.দ্রঃদৈনিক নতুন ভাবনাপত্রিকায় প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার সম্পূর্ন লেখকের/প্রতিনিধির।আমরা লেখক প্রতিনিধির চিন্তা ও মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।প্রকাশিত লেখার সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল সবসময় নাও থাকতে পারে।তাই যে কোনো লেখার জন্য অত্র পত্রিকার কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

তাজা খবর

ভাস্কর্য হবেই, মামুনুল-ফয়জুলের গ্রেপ্তার দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক//

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণের বিরোধিতাকারী হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের জ্যেষ্ঠ নায়েবে আমির সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করীমের গ্রেপ্তারসহ সাত দফা দাবিতে রাজধানীর শাহবাগ মোড় এক ঘণ্টা অবরোধ করেছে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ।

সাত দফা দাবিতে আজ শনিবার বিকেল চারটায় শাহবাগ মোড়ে রাস্তা আটকে অবস্থান নেন মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের আমিনুল ইসলাম বুলবুল ও আল মামুনের নেতৃত্বাধীন অংশের বিপুলসংখ্যক নেতা-কর্মী। পরে তারা সেখানে গণজমায়েত করেন। একটি মিনি ট্রাকের ওপর মঞ্চ স্থাপন করে দাবির পক্ষে বক্তব্য দেন সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা। কর্মসূচিতে আগামী ১ ডিসেম্বর সারা দেশে একযোগে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশের ঘোষণা দেয়া হয়। সমাবেশের আগে সংগঠনটির নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল করেন।

ঢাকাসহ প্বার্শবর্তী নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর কমিটির নেতাকর্মীরা এসব কর্মসূচিতে অংশ নেয়। এসময় সংগঠনটির সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল, সাধারণ সম্পাদক আল মামুন, ভাস্কর শিল্পী রাশা, সুপ্রিম কোর্টের সাবেক বিচারপতি সামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক প্রমুখ বক্তব্য দেন।

সুপ্রিম কোর্টের সাবেক বিচারপতি সামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক বলেন, বিশ্বে সব জায়গায় ভাস্কর্য রয়েছে। তারা ভাস্কর্য আর মূর্তির পার্থক্য বুঝে না। তারা মুক্তিযুদ্ধের সময় রাজাকার ছিলো। এখন ছাত্র বলাৎকার করে মাদ্রাসায়। তাদের পাকিস্তানে পাঠাতে হবে। অবশ্য পাকিস্তান নিবে কি না সন্দেহ আছে। বেশি লাফালাফি করলে দুমড়ে মুচড়ে বঙ্গোপসাগরে ফেলে দিবো।

কর্মসূচির বিষয়ে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন বলেন, আমরা সরকারের কাছে সাত দফা দাবি জানিয়েছে। আমাদের দাবি অনুযায়ী মামুনুল হক ও ফয়জুল করিমকে গ্রেপ্তার করে দ্রুত বিচারের আওতায় আনতে হবে। ফ্রান্সে মহানবীকে কটূক্তি করার প্রতিবাদে যেভাবে রাস্তায় নেমেছিলাম তেমনই মামুনুল হকের গ্রেপ্তারের দাবিতে রাস্তায় নামবে। আগামী ১ ডিসেম্বর দেশের সকল জেলা উপজেলায় মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সকল ইউনিট একযোগে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করবে।

সমাবেশ চলাকালে শাহবাগে যানজটের সৃষ্টি হয়েছিল। এখন যান চলাচল সাভাবিক আছে। প্রায় তিন শতাধিক নেতাকর্মী সমাবেশে উপস্থিত আছেন।

মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সাত দফা দাবিগুলো হল-

১। মহানবী (সা:) কে অবমাননা ও বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণের বিরোধিতা করার অপরাধে ধর্ম ব্যবসায়ী মামুনুল হক ও ফয়জুল করিমকে গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে।

২। দেশের প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও জেলা, উপজেলায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্ক্রর্য নির্মাণ করতে হবে।

৩। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখার লক্ষ্যে বাংলাদেশে অবিলম্বে ধর্মভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধ করতে হবে এবং পবিত্র মসজিদ-মাদ্রাসাগুলোতে রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড পরিচালনা বন্ধ করতে হবে।

৪। বিভিন্ন ধর্মীয় সভা ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ধর্মীয় উস্কানিমূলক গুজব ছড়ানো ও অপপ্রচারকারীদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে।

৫। ধর্ষণের ন্যায় বলাৎকারের অপরাধে অভিযুক্তদের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড নিশ্চিত করতে হবে।

৬। মাদ্রাসা শিক্ষা ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজাতে হবে এবং মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের ওপর যৌন নিপীড়ন বন্ধে মনিটরিং সেল গঠন করে নজরদারি বাড়াতে হবে।

৭। সকল মাদ্রাসা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নিয়মিত জাতীয় সংগীত বাজানো, জাতীয় পতাকা উত্তোলন, শহীদ মিনার নির্মাণ ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস জানানো বাধ্যতামূলক করার জন্য প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিতে হবে।

Alert! This website content is protected!