বি.দ্রঃদৈনিক নতুন ভাবনাপত্রিকায় প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার সম্পূর্ন লেখকের/প্রতিনিধির।আমরা লেখক প্রতিনিধির চিন্তা ও মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।প্রকাশিত লেখার সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল সবসময় নাও থাকতে পারে।তাই যে কোনো লেখার জন্য অত্র পত্রিকার কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।

তাজা খবর

  1. Home
  2. Tag

Tag query for: “মেজর সিনহা হত্যা মামলা”

মেজর সিনহা হত্যা মামলা, অভিযোগপত্র গ্রহণ করেছেন আদালত নতুন ভাবনা ডেস্কঃ- মেজর (অব) সিনহা মো রাশেদ খান হত্যা মামলায় ওসি প্রদীপ কুমার দাশসহ (বরখাস্ত) ১৫ জনকে অভিযুক্ত করে জমা দেয়া অভিযোগপত্র গ্রহণ করেছেন আদালত। গতকাল সকালে কক্সবাজারের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম তামান্না ফারাহর আদালত অভিযোগপত্র গ্রহণ করেন। পাশাপাশি মামলার একমাত্র পলাতক আসামি পুলিশ কনস্টেবল সাগর দেবের নামেও গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত। সিনহা হত্যার ঘটনাটি পূর্বপরিকল্পিত উল্লেখ করে ১৩ ডিসেম্বর আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও র্যাব-১৫-এর সহকারী পুলিশ সুপার মো খাইরুল ইসলাম। এতে মোট ১৫ জনকে অভিযুক্ত করা হয়। নতুন করে আসামি দেখানো হয় টেকনাফ থানার সাবেক কনস্টেবল সাগর দেবকে। তিনি বর্তমানে পলাতক। তার বাড়ি চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলার সুতরিয়া গ্রামে। কক্সবাজার আদালতের সরকারি কৌঁসুলি ফরিদুল আলম জানান, আদালত নিহত মেজর (অব) সিনহা হত্যা মামলায় দাখিল করা অভিযোগপত্র গ্রহণ করেছেন। সেই সঙ্গে মামলার পলাতক আসামি টেকনাফ থানার সাবেক কনস্টেবল সাগর দেবের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন। একই ঘটনায় টেকনাফ থানায় পুলিশের করা দুটি মামলা থেকে আসামি সাইদুল ইসলাম সিফাতকে অব্যাহতি দিয়েছেন আদালত। অভিযোগপত্রে অন্তর্ভুক্ত আসামিরা হলেন হত্যাকাণ্ডের সময় দায়িত্বরত টেকনাফের বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মো লিয়াকত আলী, টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, এসআই নন্দদুলাল রক্ষিত, বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের এএসআই মো লিটন মিয়া, টেকনাফ থানার কনস্টেবল ছাফানুল করিম, মো কামাল হোসাইন আজাদ, মো আবদুল্লাহ আল মামুন, বাহারছড়ার মারিশবুনিয়া গ্রামের তিন ব্যক্তি মো নুরুল আমিন, মোহাম্মদ আইয়াজ ও মো নিজাম উদ্দিন, আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) তিন সদস্য এসআই মো শাহজাহান আলী, কনস্টেবল আবদুল্লাহ আল মাহমুদ ও কনস্টেবল মো রাজীব হোসেন, কনস্টেবল রুবেল শর্মা ও কনস্টেবল সাগর দেব। আসামিদের মধ্যে প্রথম ১৪ জন কারাগারে রয়েছেন, যাদের মধ্যে নয়জনই জেলা পুলিশের সদস্য ছিলেন। এছাড়া তিনজন মারিশবুনিয়া গ্রামের বাসিন্দা ও পুলিশের সোর্স। গত ৩১ জুলাই রাত সাড়ে ৯টায় কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়কের শামলাপুর তল্লাশিচৌকিতে পুলিশের বাহারছড়া তদন্তকেন্দ্রের তত্কালীন কর্মকর্তা পরিদর্শক লিয়াকত আলীর গুলিতে নিহত হন মেজর (অব) সিনহা মো রাশেদ খান।...
  • 7 Months Ago
  • 129 Views
  • Alert! This website content is protected!